[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

২২শে মে মহিমান্বিত শবে বরাত

প্রকাশঃ May 11, 2016 | সম্পাদনাঃ 11th May 2016

sob-e-borat

বাংলাদেশের আকাশে গত শনিবার কোথাও শাবান মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে আগামী ২২ মে দিবাগত রাতে মুসলমানদের সৌভাগ্যের রজনী পবিত্র শবে বরাত পালিত হবে। শনিবার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের চাঁদ দেখা কমিটির এক বৈঠক শেষে এ কথা জানানো হয়।

মহান আল্লাহ এ রাতে বান্দাদের জন্য তার অশেষ রহমতের দরজা খুলে দেন। মহিমান্বিত এ রাতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা বিগত জীবনের সব ভুল-ভ্রান্তি, পাপ-তাপের জন্য গভীর অনুশোচনায় মহান আল্লাহর দরবারে সকাতরে ক্ষমা প্রার্থনা করেন এবং ভবিষ্যৎ জীবনে পাপ-পঙ্কিলতা পরিহার করে পরিশুদ্ধ জীবনযাপনের জন্য আল্লাহর রহমত কামনা করেন। হাদিসে এবং আলেম-ওলামা ও তাফসীরকারকদের বর্ণনায় শবে বরাতের বহু তাৎপর্য এবং এ রাতের মহিমার কথা উল্লেখ করেছেন।

হাদীসে আছে, হযরত আয়েশা (রা.) বলেন- ‘এক রাতে রাসূলকে (সা.) না পেয়ে খুঁজতে বের হলাম। খুঁজতে খুঁজতে জান্নাতুল বাকীতে গিয়ে আমি তাকে দেখতে পেলাম। মহানবী (সা.) বললেন- কী ব্যাপার আয়েশা? তোমার কি মনে হয় আল্লাহ এবং তার রাসূল তোমার উপর কোনো অবিচার করবেন? হযরত আয়েশা (রা.) বললেন- আমার ধারণা হয়েছিল আপনি অন্য কোনো বিবির ঘরে গিয়েছেন। রাসূল (সা.) তখন বললেন- যখন শাবান মাসের ১৫তম রাত আসে তখন আল্লাহ পাক এ রাতে প্রথম আসমানে নেমে আসেন। তারপর বনু কালব গোত্রের বকরীর পশমের চেয়ে বেশি সংখ্যক বান্দাদের ক্ষমা করে দেন। -(সুনানে তিরমিযী)।

ফারসি ‘শব্দ’ শব্দের অর্থ রাত এবং ‘বরাত’ অর্থ সৌভাগ্য। এ দুটি শব্দ নিয়ে ‘শবে বরাত’, অর্থাৎ সৌভাগ্যের রজনী। আরবিতে একে বলে ‘লাইলাতুল বরাত’। হিজরি বর্ষপঞ্জির শাবান মাসের ১৪ তারিখ দিবাগত রাতটি মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত পবিত্র ও মহিমান্বিত।

এই বিভাগের আরো সংবাদ