[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

২০ স্ত্রীকে ফুলশয্যার পর সায়ানাইড খাইয়ে হত্যা করে সিরিয়াল কিলার

প্রকাশঃ June 9, 2016 | সম্পাদনাঃ 9th June 2016
Feature Image(স্বাধীনতা৭১ডটকম)
নিউজ ডেস্ক : মানব সভ্যততার ইতিহাসে সিরিয়াল কিলিংয়ের ঘটনা অনেক পুরানো। ইতিহাতের পাতায় এমন অনেক সিরিয়াল কিলার রয়েছে যাদের হত্যালীলা শুনলে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য। তেমনই এক সিরিয়াল কিলার সায়ানাইড মোহন, এই কিলার ফুলশয্যার রাতে স্ত্রীকে পটাশিয়াম সায়ানাইড খাইয়ে খুন করত৷ তারপর তার সমস্ত গয়নাগাটি লুঠ করে চম্পট দিত ।

কর্ণাটকের বিখ্যাত সিরিয়ার কিলার সায়ানাইড মোহনের আসল নাম মনোজ কুমার ছিল৷ পেশায় একজন স্কুল শিক্ষক ছিল মোহন৷ শিক্ষক হলেও তার প্রধান কাজ ছিল বিয়ের পর স্ত্রীকে খুন করে তার গয়না লুঠ করা৷

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বিয়ের পর গোটা রাত নববধূর শরীর ভোগ করত সে৷ পরদিন সকালে গর্ভনিরোধক খাওয়ানোর নাম করে তাদের সায়ানাইড খাইয়ে খুন করত সে। এরপর বধূর সমস্ত গয়নাগাটি হাতিয়ে নেওয়াই ছিল তার প্রধান উদ্দেশ্য৷ ২০০৫ থেকে ২০০৯ সালের মধ্যে প্রায় ২০ জন মহিলাকে খুন করেছে মোহন৷

সুনন্দা নামের এক মহিলাকে বিয়ের পর খুন করে মোহন৷ সুনন্দা বাড়ি থেকে মন্দির যাবেন বলে বেড়িয়েছিলেন কিন্তু তার মৃতদেহ মৌসুরের বাসস্ট্যান্ড থেকে উদ্ধার করা হয়৷

২০০৯ সালে অনিতা নামের এক যুবতীকে নিজের জালে ফাঁসায় মোহন। এরপরেই তার কুকর্মের পর্দাফাঁস হয়৷

২০০৯ সালে গ্রেফতার হওয়ার পর চার বছর ধরে মোহনের বিরুদ্ধে মামলা চলে৷ ২০১৩ সালে মোহনকে খুনের মামলায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়৷ এরপরেই সেবছর ডিসেম্বর মাসে তাদের ফাঁসীর সাজা দেওয়া হয়৷

এই বিভাগের আরো সংবাদ