[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

হান্নান ফিরোজের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ

প্রকাশঃ May 7, 2016 | সম্পাদনাঃ 7th May 2016

2016_05_07_14_46_02_ljU2WgRGpAPYiUJLWn73Nhn20zXun6_original

ঢাকা : সিদ্ধেশ্বরীতে অবস্থিত বাংলাদেশ ট্রেডিং করপোরেশনের (বিটিসি) অফিস থেকে মূল্যবান জিনিসপত্র চুরির অভিযোগে স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হান্নান ফিরোজের বিরুদ্ধে জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

শনিবার বিটিসির আইন উপদেষ্টা কাজী শরিফুল ইসলাম বাংলামেইলকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তার অভিযোগের ভিত্তিতে রমনা মডেল থানায় করা জিডি নম্বর ৪৬৩।

অভিযোগে বলা হয়, বিটিসির মালাকানাধীন ৫১ সিদ্ধেশ্বরী রোডে স্টামফোর্ডের অস্থায়ী ক্যাম্পাস অবস্থিত। সে সুযোগে বিটিসির অনুমতি না নিয়ে সীমানা প্রাচীর পার হয়ে প্রতিষ্ঠানটির অফিসে ঢুকে মূল্যবান জানিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় গতকাল শুক্রবার (বন্ধের দিন) স্টামফোর্ডের কর্মচারী মো. আসলাম, মো. শহীদ এবং মো. তসলিম বিটিসির ইঞ্জিনিয়ার শাহাদাত হোসেনের কাছে হাতেনাতে ধরা পড়ে।

হান্নান ফিরোজ পাঠিয়েছে বলে কর্মচারীরা স্বীকার করে ক্ষমা চাইলে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। এর আগেও অনেক জিনিসপত্র হারিয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে আজ (৭ মে) রমনা মডেল থানায় জিডি করা হয়।

বিটিসির সঙ্গে স্টামফোর্ডের অনেক দিন ধরে বিভিন্ন বিষয়ে ঝামেলা চলে আসছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ৫১ সিদ্ধেশ্বরী রোডে অবস্থিত স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গাটি রাশিয়ান সরকারের। লিজ সূত্রে বর্তমান মালিক বিটিসি। স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ২০০৩ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত চার দফা চুক্তিতে জায়গাটি বিটিসির কাছ থেকে ভাড়া নেয়।

কিন্তু চুক্তির মেয়াদে শর্ত ভেঙে ওই জায়গায় স্থাপনা নির্মাণ, সঠিক সময়ে ভাড়া পরিশোধ না করা, ব্যাংক হিসাবে অপর্যাপ্ত অর্থ রেখে চেক দেয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। জায়গাটি স্টামফোর্ডের নিজেদের বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) কাছ থেকে স্থায়ী ক্যাম্পাসের অনুমতিও নেয় প্রতিষ্ঠানটি।

কয়েক দফা আইনি নোটিশ পাঠিয়ে কোনো কূলকিনারা করতে পারেনি বিটিসি। সবশেষে সমস্যা সমাধানে বিটিসি ইউজিসির শরণাপন্ন হয়। সেই সঙ্গে আর্থিক বিষয়টি সুরাহ করতে চেক প্রতারণার মামলা করে হান্নান ফিরোজের বিরুদ্ধে।

জায়গা সংক্রান্ত বিষয়টি ১৯ এপ্রিল নিষ্পতি করে ইউজিসি। তদন্ত শেষে ইউজিসি জানিয়ে দেয় জায়গাটি রুশ সরকারের। বর্তমানে লিজ সূত্রে এর মালিক বিটিসি।

জায়গার মালিকানার কোনো বৈধ কাগজপত্র দেখাতে না পারায় স্টামফোর্ডকে স্থায়ী ক্যাম্পাসের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়। সেই সঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসারে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে কেনা জায়গায় ক্যাম্পাস হস্তান্তরের জন্য চিঠি পাঠায়।

আর্থিক বিষয়ের চেক প্রতারণা মামলার পাঁচটিতে হান্নান ফিরোজ বর্তমানে জামিনে রয়েছেন। দু’টি মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে।

এদিকে ৩ এপ্রিল বিটিসির আইন উপদেষ্টা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে বিভিন্ন সময়ে পাওনা ৮ কোটি টাকা পরিশোধ এবং বেঁধে দেয়া সময় অর্থাৎ ২০১৭ সালের মধ্যে ক্যাম্পাসটি সরিয়ে জায়গাটি খালি করে বিটিসিকে বুঝিয়ে দেয়ার জন্য জানানো হয়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ