[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

হঠাৎ সাইট মুছে ফেলল হোস্টিং প্রতিষ্ঠান

প্রকাশঃ April 19, 2016 | সম্পাদনাঃ 19th April 2016

Web+host+123-reg+deletes+sites+in+clean-up+error

ওয়েব হোস্টিং প্রতিষ্ঠান ১২৩-রেজ ‘দুর্ঘটনাক্রমে’ তাদের ক্রেতাদের অজানা সংখ্যক ওয়েবসাইট মুছে ফেলেছে।যে কোনো ওয়েবসাইট সচল রাখতে হলে ওই সাইটের কনটেন্ট বিশেষ এক ধরনের সার্ভারে রাখতে হয় যেখান থেকে ওই সাইটের কনটেন্ট সাইট ভিজিটরের মনিটরে প্রদর্শন করে। ওই সার্ভারের মালিক প্রতিষ্ঠানকেই প্রচলিত ভাষায় বলা হয় হোস্টিং প্রতিষ্ঠান।

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, রক্ষণাবেক্ষণের সময় তাদের কোনো একটি সার্ভারের ত্রুটির কারণে কিছু ডেটা ‘পুরোপুরিভাবে মুছে গেছে’। বিবিসির এক প্রতিবেদনে প্রতিষ্ঠানটি ভুল স্বীকার করেছে বলে জানানো হয়েছে।

“আমরা বলতে পারি, সমস্যাটির কারণে কিছু ভোক্তার তথ্য মুছে গেছে।”

প্রতিষ্ঠানটি তথ্য পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া শুরু করলেও তাদের গ্রাহকদের ‘নতুন করে ওয়েবসাইট তৈরির’ পরামর্শ দিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি মুছে যাওয়া ওয়েবসাইটগুলোর সংখ্যা জানাতে অস্বীকৃতি জানালেও, এটি একটি ‘ছোট অংশ’ বলে অবহিত করেছে। প্রতিষ্ঠানটি যুক্তরাজ্যে প্রায় ৮ লাখ গ্রাহকের ১৭ লাখ ওয়েবসাইট হোস্ট করে।

অনেক ওয়েব হোস্টিং প্রতিষ্ঠানের মতো ১২৩-রেজ’ও ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভার (ভিপিএস) ব্যবহার করে। এটি প্রাইভেট সার্ভারের মতো কাজ করলেও একসঙ্গে শতাধিক ওয়েবসাইট হোস্ট করতে পারে।

প্রতিষ্ঠানটির ভাষ্যমতে, তারা তাদের ভিপিএস সিস্টেমে একটি ‘ক্লিন আপ টাস্ক’ চালানোর সময়ে কোডিংয়ের একটি ভুলে কিছু গ্রাহকের ওয়েবসাইট পুরোপুরিভাবে মুছে গেছে। ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভারে ঘটনাটি ঘটার জন্য একবারেই অনেক ওয়েবসাইট মুছে গেছে। ১২৩-রেজ বিবিসিকে জানায়, তাদের সব গ্রাহকের তথ্য তাদের কাছে ব্যাকআপ করা ছিল না, কিন্তু তারা তথ্য পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়াটি ঠিকভাবে সম্পন্ন করার জন্য একজন তথ্য পুনরুদ্ধার বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কাজ করছে।

প্রতিষ্ঠানটি বলে, “আমাদের ভিপিএস ব্যবস্থাটি একটি অরক্ষিত সেবা এবং আমরা সবসময় অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়ানোর জন্য তথ্যের নিরাপত্তার জন্য নিজেদের তথ্যের ব্যাকআপ রাখার জন্য পরামর্শ দেই।”

তথ্য হারানোর ঘটনার পর সামাজিক মাধ্যমগুলোতে সমালোচনার তোড়ে ভেসে গেছে ১২৩-রেজ। একজন গ্রাহক লিখেছেন, “ঘটনাটিকে এখনো শুধুই একটি ‘ভিপিএস যোগাযোগ সংক্রান্ত সমস্যা’ বলে উল্লেখ করা হচ্ছে, যেখানে তারা সব হারিয়ে ফেলেছে।”

আরেকজন প্রশ্ন করেছেন, “কোনো তথ্য তো থাকার কথা, তাইনা? তারা আসলে কী নিয়ে কাজ করছে?” ঘটনাটির শিকার একটি প্রতিষ্ঠান বলেছে, “তারা আমার এবং আরও অনেকের ব্যবসা ধ্বংস করে ফেলবে।”

গ্রাহকদের কাছে রবিবার পাঠানো এক ইমেইলে ১২৩-রেজ বলে, “নতুন হোস্টে পুনরুদ্ধার করা ভিপিএস ইমেজগুলো কপি করা শুরু হয়েছে।” তারা আশা করছে, রাতের মধ্যেই কিছু ওয়েবসাইট হয়তো পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হবে।

প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, তারা তাদের সব স্বয়ংক্রিয় স্ক্রিপ্টগুলো খতিয়ে দেখবে এবং ভবিষ্যতে গ্রাহকদের ওয়েবসাইটের ক্ষয়ক্ষতি রোধে কাজ করবে। “ইউরোপজুড়ে থাকা ১১৫,০০০ সার্ভারের মধ্যে ৬৭টি সার্ভার এ সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছে।”, বলেছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানটি আরও বলে, “আমরা প্রতিটি ভিপিএস-এর পুনরুদ্ধারের জন্য ধাপে ধাপে তদন্ত করছি এবং ওয়েবসাইট পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া সম্পর্কে গ্রাহকদের ব্যক্তিগতভাবে জানাচ্ছি।”

সম্প্রতি আরেক ওয়েব হোস্টিং প্রতিষ্ঠানের মার্কো মারসালা নামের এক কর্মকর্তা একটি কম্পিউটার কোডিংয়ের একটি লাইন পরিবর্তন করেন। আর তার ওই ভুলে প্রতিষ্ঠানের তথ্যের সঙ্গে মারসালা ১৫৩৫ জন গ্রাহকের তথ্যও মুছে দেন যারা হোস্টিং সেবাটি ব্যবহার করতেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ