[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

শনিবার সারা দেশে বিক্ষোভ ‌মি‌ছিল ও সমা‌বেশ করবে বিএনপি।

প্রকাশঃ July 22, 2016 | সম্পাদনাঃ 22nd July 2016
Feature Imageস্বাধীনতা৭১ডটকম

 

ঢাকা: অর্থ পাচার মামলায় দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাজা দেওয়ায়র প্রতিবাদে শনিবার সারা দেশে বিক্ষোভ ‌মি‌ছিল ও সমা‌বেশ করবে বিএনপি। সারা দেশে জেলা ও মহানগ‌রে এই কর্মসূ‌চি পা‌লিত হ‌বে।

আজ শুক্রবার সকা‌লে রাজধানীর নয়াপল্ট‌নে দ‌লের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ স‌ম্মেল‌নে এই কর্মসূ‌চি ঘোষণা ক‌রেন দল‌টির সি‌নিয়র যুগ্ম মহাস‌চিব রুহুল ক‌বির‌ রিজভী।

ঢাকায় কেন্দ্রীয়ভা‌বে এই  কর্মসূ‌চি পা‌লিত হ‌বে। সময় ও স্থান পরবর্তী‌তে জানানো হ‌বে ব‌লেও জানান রিজভী।

সংবাদ স‌ম্মেল‌নে দ‌লের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ, নজরুল ইসলাম, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ উপস্থিত ছি‌লেন।

২০০৯ সালের ২৬ অক্টোবর রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় এ মামলাটি করে দুদক। ২০১১ সালের ৮ আগস্ট এ মামলায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেন আদালত।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, টঙ্গীতে প্রস্তাবিত ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের কাজ পাইয়ে দেওয়ার জন্য নির্মাণ কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেডের মালিক খাদিজা ইসালামের কাছ থেকে গিয়াস উদ্দিন আল মামুন ২০ কোটি ৪১ লাখ ২৫ হাজার ৮৪৩ টাকা নেন। সিঙ্গাপুরে এই টাকা লেনদেন হয়।

এরপর মামুন ওই অর্থ সিঙ্গাপুরের ক্যাপিটাল স্ট্রিটের সিটি ব্যাংক এনএতে তার নামের ব্যাংক হিসাবে জমা করেন। এ টাকার মধ্যে তারেক রহমান ৩ কোটি ৭৮ লাখ টাকা খরচ করেন।

২০১৩ সালের ১৭ নভেম্বর তারেক রহমানকে বেকসুর খালাস দিয়ে তার বন্ধু গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে অর্থপাচার মামলায় সাত বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালত।

ওই রায়ে কারাদণ্ডের পাশাপাশি মামুনকে ৪০ কোটি টাকা জরিমানাও করা হয়। পাচার করা ২০ কোটি ৪১ লাখ ২৫ হাজার ৬১৩ টাকা রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দেন আদালত।

এ রায়ের বিরুদ্ধে ওই বছরের ৫ ডিসেম্বর আপিল করে দুদক। ২০১৪ সালের ১৯ জানুয়ারি এ আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে তারেক রহমানকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দেন হাইকোর্ট বেঞ্চ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ছেলে দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক বিভিন্ন মামলা মাথায় নিয়ে ২০০৮ সাল থেকে যুক্তরাজ্যে রয়েছেন। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টাসহ আরো দুর্নীতি, রাষ্ট্রদ্রোহ ও মানহানীর অভিযোগে কয়েক ডজন মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

আর জরুরি অবস্থার মধ্যে ২০০৭ সালে গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে গিয়াসউদ্দিন আল মামুন কারাগারেই আছেন।

স্বাধীনতা৭১ডটকম/এমআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ