[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

‘স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দেশের জন্য কাজ করুন,সেলিম ওসমান।

প্রকাশঃ July 28, 2016 | সম্পাদনাঃ 28th July 2016

SELIM1469701215

সচিবালয় প্রতিবেদক :

বিএনপি নেতাদের প্রতি ইঙ্গিত করে বিকেএমইএর সভাপতি সেলিম ওসমান বলেছেন, ‘স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দেশের জন্য কাজ করুন। যে কেউ স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করতে পারেন। সবকিছুতেই রাজনীতি টেনে আনবেন না। রাজনীতির জন্য দেশটাকে ধ্বংস করবেন না।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। দেশের চলমান বাণিজ্য পরিস্থিতি বিষয়ে শীর্ষ ব্যবসায়ীদের নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

সেলিম ওসমান বলেন, ‘সন্ত্রাসী হামলার পর এ পর্যন্ত কারো কোনো অসুবিধা হয়নি। দেশের মানুষ অস্বস্তিতে নেই। অথচ মুষ্টিমেয় লোক দেশের বিরুদ্ধে দেশ-বিদেশে প্রোপাগান্ডা চালাচ্ছে। রাজনীতি টেনে এনে দেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। ঘটনার পর থেকে আমাদের প্রত্যেকটি পোশাক কারখানায় স্বাভাবিক কাজকর্ম হচ্ছে। কিন্তু কেউ কেউ মায়াকান্না করে বলছেন, দেশের গার্মেন্টস ব্যবসা চলে যাবে, বায়াররা আসবে না। আমার প্রশ্ন, যারা দেশের গার্মেন্টস ব্যবসা চলে যাবে বলে মায়াকান্না করছে, তারাই রপ্তানি খাত ধ্বংস করতে এসব ঘটনা ঘটিয়েছে কিনা?’

তিনি আরো বলেন, ‘ঘটনার পর থেকে এক্সপোর্ট কমেনি। আমাদের যে টার্গট ছিল তার নিচে যায়নি। গার্মেন্টসকে আটকানো যায়নি বরং রপ্তানি আরো বেড়েছে।’

জুলাই-আগস্ট মাসে বায়াররা পরিবার নিয়ে অবকাশ যাপন করেন বলে বায়াররা বাংলাদেশে আসেন না বলেও জানান সেলিম ওসমান।

ব্যবসা-বাণিজ্য নিয়ে অপপ্রচার বন্ধে মিডিয়ার সহযোগিতা কামনা করে বিকেএমইএর সভাপতি বলেন, ‘বিভ্রান্তিমূলক তথ্যে শুধু আমাদের ক্ষতি হবে না। বরং এর সঙ্গে জড়িত কোটি কোটি শ্রমজীবী মানুষের জীবন বিপন্ন হবে।’ সঙ্কট মোকাবিলায় মিডিয়াকে অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান তিনি।

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্য হয়েছে, এ দাবি করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাধারণ মানুষের মধ্যে যে ঐক্য হয়েছে, তা আমি স্বাধীনতার পরে আর কখনো দেখিনি। অথচ সন্ত্রাসীদের কেন মারা হলো, এ নিয়ে কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন। যারা এমন প্রশ্ন করছেন, তাদের দেশপ্রেম নিয়ে আমার প্রশ্ন আছে।’

বিরোধী দল জাতীয় পার্টির এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘পবিত্র রমজান মাসে তারাবির সময় গুলশানে ইতালির বায়ার ও জাপানি বিনিয়োগকারীদের লক্ষ্য করে হামলা করা হয়েছে। মূলত তাদের এ হামলার লক্ষ্য একটাই- দেশের রপ্তানি খাতকে ধ্বংস করা। গার্মেন্টস শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত করা।’

সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, এফবিসিসিআইয়ের প্রাক্তন সভাপতি সালমান এফ রহমান, বিকেএমইএর সভাপতি সেলিম ওসমান, শিল্পউদ্যোক্তা ও প্রাক্তন উপদেষ্টা তপন চৌধুরী, নাসিম মনজুর, বিজিএমইএর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মঈনুদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।  

 

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ