[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

রমজান মাসে কেন নতুন সিনেমা মুক্তি পায় না?

প্রকাশঃ June 8, 2016 | সম্পাদনাঃ 8th June 2016

jouth film_0

ছবি : সংগৃহীত।
রমজান মাসে কোন নতুন ছবি মুক্তি দেওয়া হয় না। কিন্তু কেন? এ রীতির প্রচলনই বা কবে থেকে? এসব নিয়েই আমাদের এই প্রতিবেদন।

রমজান মাস এলেই নতুন সিনেমা মুক্তি দেওয়ার প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায়। শুধু তাই নয়, অনেক সিনেমা হলও  বন্ধ থাকে। নানাবিধ কারণেই রমজান মাসে নতুন সিনেমা মুক্তি দেওয়া হয় না। এর অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে-রমজান সিয়াম সাধনার মাস। এ মাস শুদ্ধি লাভের মাস। ফলে স্বাভাবিকভাবেই এ মাসে মুসলমানরা ইসলাম বিরোধী কাজ থেকে বিরত থাকেন।এমনকি সিনেমা দেখা গান শোনা থেকেও অনেকে বিরত রাখেন নিজেকে। এসব কারণে সিনেমা হলে মানুষ তেমন যান না। এ কারণে লোকসানের ভয়ে প্রযোজক-পরিচালকরা নতুন ছবি মুক্তি দেন না।

তবে নতুন ছবি মুক্তি না পেলেও সিনেমা হল কিন্তু ঠিকই চলে। পুরনো ছবি দিয়েই পুরো মাস সিনেমা হলগুলো ব্যবসা টিকিয়ে রাখে।

রমজান মাসে ছবি মুক্তি না দেওয়ার এই রেওয়াজ কবে নাগাদ শুরু হয়েছিল তা বলতে পারেন নি কেউই।

বহুবছর ধরে প্রযোজক সমিতির শিডিউল দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা বাবু বলেন, ‘রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করতেই এ মাসে নতুন ছবি মুক্তি দেওয়া হয় না।আর এ রীতি অনেক আগে থেকেই। কবে থেকে এ রীতির প্রচলন তা আমরা জানি না।’

হল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিয়া আলাউদ্দিন বলেন, ‘আমি ৫০ বছর ধরে সিনেমা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। আমি এ ব্যবসায় যুক্ত হওয়ার পর থেকেই দেখে আসছি এ মাসে কোন ছবি মুক্তি দেওয়া হয় না। আমার যতটুকু মনে পড়ে পাকিস্তান আমল থেকেই এ রীতি চলে আসছে। অার রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষা করতেই এ মাসে সিনেমা মুক্তি দেওয়া হয় না। ব্যবসা তো করতে চাইলে করায় যায়, কিন্তু আমরা মনে করি মুসলমান অধ্যূষিত এ দেশে ধর্মপ্রাণ মানুষের প্রতি সম্মান থেকে এ ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।’

এ প্রসঙ্গে প্রযোজক নাসির উদ্দিন দিলু বলেন, ‘রমজান মাসে ধর্মপ্রাণ মানুষদের কথা চিন্তা করেই নতুন সিনেমা মুক্তি দেওয়া হয় না। এ ছাড়া এ মাসে ছবি মুক্তি দিলেও তা ব্যবসা করে না। আর এ রীতি চলে আসছে সিনেমার শুরু থেকেই।’

আগে শবে বরাতের পর থেকেই সিনেমা মুক্তি দেওয়া বন্ধ থাকলেও মাঝে মাঝে রমজানের কয়েকদিন আগে এ প্রক্রিয়া থেমে যায়।
এদিকে কাজী হায়াত জানালেন, একটা সময়ে রমজান মাসেও কিছু কিছু ছবি মুক্তি দেওয়া হতো। তিনি বলে, ‘শুরু থেকেই দেখে আসছি রমজান মাসে কোন ছবি মুক্তি দেওয়া হয় না। তবে মাঝখানে কিছু ছবি মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। সেসময়ে কিছু ল কোয়ালিটির ছবি রমজান মাসেও মুক্তি পেত। কিন্তু পরে সেটাও থেমে যায়। আসলে বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষই এ সময় রোজা রাখে, ধর্মকর্ম করে-ফলে সিনেমা দেখার সময় হয় না তাদের। যারা রোজা রাখে না তারা অবশ্য সিনেমা হলে যায়। সে কারণে ঐ দর্শকদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে কিজছু কিছু হল খোলা থাকে।’

এই বিভাগের আরো সংবাদ