[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

যুদ্ধাপরাধের আসামিকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন

প্রকাশঃ April 28, 2016 | সম্পাদনাঃ 28th April 2016

Nabiganj gulap

আওয়ামী লীগ নেতা আবুল খায়ের গোলাপ। ছবি: প্রিয়.কম

হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামি আবুল খায়ের গোলাপ। পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে বুধবার তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। এতে তিনি আশঙ্কা করছেন, মামলার তদন্ত কার্যক্রম বিঘ্নিত হতে পারে।

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন জানান, আবুল খায়ের গোলাপের বিরুদ্ধে চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে মানবতাবিরোধী অপরাধের তদন্ত শুরু করেছে ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা। তদন্তের এই পর্যায়ে তাকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ায় তদন্তের ব্যাঘাত ঘটবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৯ মার্চ সোমবার বিকেলে নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল খায়ের গোলাপ মিয়ার বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ এনে দায়েরকৃত মামলার বাদী মৃত রইছ উল্লার কন্যা সুকুরি বিবি হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেন। সাংবাদিক সম্মেলনে সুকুরি বিবি তার উপর চেয়ারম্যান আবুল খয়ের গোলাপ ও তার লোকজনের নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে বলা হয়, গত ১৩ মার্চ আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে চেয়ারম্যান আবুল খায়ের গোলাপের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ দায়ের করেন সুকুরি বিবি। অভিযোগ দায়ের করার পর থেকে তিনি ও তার পরিবার এবং মামলার সাক্ষীরা গোলাপ চেয়ারম্যানের হুমকিতে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন।

এমনকি গোলাপ ও তার লোকজনের হুমকি ও হামলার ভয়ে তিনি বসতভিটা ছেড়ে অন্যত্র বসবাস করছেন বলে উল্লেখ করেন।

এছাড়া আবুল খায়ের গোলাপের বিরুদ্ধে ৭১ সালে লোকজনের বাড়িতে হামলা, অগ্নিসংযোগ, ধর্ষণ ও লুটপাটের অভিযোগ ছাড়াও বর্তমান সময়ে অনেক অভিযোগ রয়েছে বলে লিখিত বক্তব্যে তুলে ধরেন সুকুরি বিবি।

তিনি বলেন, গোলাপের বিরুদ্ধে ২০০৯ সালের ১৯ অক্টোবর হবিগঞ্জ বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২ এ মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ এনে গেদু মিয়া নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি তদন্ত চলাকালে ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর কান্দিগাঁও বিশ্ব রোড সংলগ্ন রাস্তার পাশে গোলাপের নেতৃত্বে গাড়িচাপা দিয়ে গেদু মিয়াকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে। পরে পিতা হত্যার অভিযোগ এনে চলতি বছরের ২২ ফেব্ররুয়ারি গেদু মিয়ার ছেলে রাজু আহমেদ আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে আরেকটি অভিযোগ দায়ের করেন। তার বিরুদ্দে আনিত সকল অভিযোগই তদন্তাধীন রয়েছে।

সুকুরি বিবি ও তার লোকজন সাংবাদিক সম্মেলন শেষে প্রেসক্লাব থেকে বেরিয়ে আসার সময় প্রেসক্লাবের গেটে গোলাপ ও তার লোকজন তাদের উপর চড়াও হয়। পরে উপস্থিত সাংবাদিকরা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। হামলার বিষয়ে সুকুরি বিবি সাংবাদিকদের বলেন, তিনি নতুন করে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তিনি বলেন, গোলাপের বিরুদ্দে মামলা করার পর থেকেই সে ক্ষিপ্ত হয়ে আছে। এমন পরিস্থিতিতে তিনি প্রাণণাশের আশংকা করছেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ