[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

মৌচাক মার্কেট বন্ধের আদেশ স্থগিত

প্রকাশঃ June 7, 2016 | সম্পাদনাঃ 7th June 2016
Feature Imageঢাকা : মালিবাগের মৌচাক মার্কেটের দোকানপাট বন্ধে হাইকোর্টের আদেশ ছয় সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। আদালতের আদেশে বলা হয়েছে, এ ক্ষেত্রে ভবন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় কোন ধরণের দুর্ঘটনা ঘটলে এর দায়-দায়িত্ব দোকান মালিকদেরই বহন করতে হবে। হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে মৌচাক মার্কেট বণিক সমিতির পক্ষে করা এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার এ স্থগিতাদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার।

বণিক সমিতির পক্ষে আদালতে শুনানি করেন এ এম আমিন উদ্দিন ও ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। আর আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মোতাহার হোসেন।

এর আগে সোমবার বুয়েটের প্রতিবেদনের আলোকে সংস্কার করা বা বিল্ডিং কোড অনুসারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে সক্ষমতা সনদ না পাওয়া পর্যন্ত এ সব দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। গৃহায়ণ ও গণপূর্তসচিব ও রাজউক কর্তৃপক্ষকে এ নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে বলেন আদালত। একই সঙ্গে দোকান খালি করতে কেন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হবে না- তাও জানতে চেয়ে রুল জারি করেন বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ। গৃহায়ণ ও গণপূর্তসচিব, রাজউক চেয়ারম্যান, রাজউকের অথোরাইজড কর্মকর্তাসহ সাত বিবাদীকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৭ মে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) মৌচাক মার্কেটের ভবন মালিককে চিঠি দেয়। এতে বলা হয়, প্রাচীন এ ভবনটি বহুল ব্যবহৃত এবং প্রতিনিয়ত হাজার হাজার মানুষের সমাগম ঘটে। বর্তমানে ইমারতটি জীর্ণ ও দৃশ্যত ঝুঁকিপূর্ণ প্রতীয়মান হয়েছে। তাই বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল বিভাগ কর্তৃক পরীক্ষা-নীরিক্ষা পূর্বক কাঠামোগত উপযুক্ততার সনদ গ্রহণ করে চাওয়া তথ্যাদি এ দপ্তরে (রাজউক) দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হলো। সেই সঙ্গে ভবনটির কাঠামোগত উপযুক্ততা নিশ্চিত হয়ে ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হলো।

এ নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে জেড কে লিমিডেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ভবন মালিক আশরাফ কামাল পাশা গত বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে রিট আবেদনটি করেন। যার ওপর রবি ও সোমবার শুনানি নিয়ে আদালত রুলসহ ওই আদেশ দেন। আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মোহাম্মদ মোতাহার হোসেন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মো. রাজিউদ্দিন সারওয়ার। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান।

এই বিভাগের আরো সংবাদ