[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

বৈশাখে পান্তা-ইলিশ খেয়ে হাসপাতালে ২৮ জন

প্রকাশঃ April 15, 2016 | সম্পাদনাঃ 15th April 2016

 

panta-ilsha20160415062740বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে পান্তা-ইলিশ খেয়ে ২৮ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে ওই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে পান্তা ভাত, ইলিশ মাছ, চিংড়ি ভর্তা ও ডাল ভর্তা খান শতাধিক লোকজন। এর পরই অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়াদের মধ্যে ২৮ জন বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত কচুয়া হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এছাড়া অনেক কর্মকর্তা লজ্জায় হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে বাড়িতে বসেই চিকিৎসা নিয়েছেন।

গুরুতর অসুস্থ হয়ে কচুয়া হাসপাতালে ভর্তিদের মধ্যে রয়েছেন কচুয়া আবু নাসের মহিলা কলেজের প্রভাষক বনী আমিন ঝুকু, কচুয়া মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কমল চন্দ্র বৈদ, কচুয়া সিএস মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শিরিনা আক্তার, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের গাড়ি চালক জাকির হোসেন, চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মহিদুল ইসলাম ও স্থানীয় অধিবাসীসহ কচুয়ার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ৮/১০ জন ছাত্র-ছাত্রী ।

কচুয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দৈনিক পূর্বাঞ্চলের কচুয়া উপজেলা প্রতিনিধি দিহিদার জাহিদুল ইসলাম বুলু শুক্রবার সকালে  জানান, উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে খাবারের তালিকায় পান্তা-ইলিশ, ডাল ভর্তা, আলু ভর্তা ও চিংড়ি মাছ ভর্তার মেনু ছিল। বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে তার পচণ্ড পেটে ব্যথা শুরু হয়। এ অবস্থায় তিনি হাসপাতালে ভর্তি হতে বাধ্য হন। তবে এখন তিনি সুস্থ। তিনি জানান, কচুয়া উপজেলার হোটেল আগমন থেকে বর্ষবরণের ওই খাবার সরবরাহ করা হয়েছিল।

কচুয়া উপজেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সাইফুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে শক্রবার বেলা ১১টা পর্যন্ত ফুড পয়জনিংয়ে অসুস্থ ২৮ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। অসুস্থদের সকলেই পহেলা বৈশাখে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পান্তা-ইলিশসহ অন্যান্য খাবার খেয়েছেন ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ