[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

বিশ্বের সেরা সুপার-কম্পিউটার এখন যুক্তরাষ্ট্রের দখলে

প্রকাশঃ June 13, 2018 | সম্পাদনাঃ 13th June 2018

সংগৃহীত

স্বাধীনতা৭১ ডেস্কঃ সুপার কম্পিউটার তৈরির প্রতিযোগিতায় এবার চীনকে পেছনে ফেলে এগিয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র। আইবিএম এবং এনভিডিয়া মিলে তৈরি করা নতুন এই সুপার কম্পিউটারের নাম ‘সামিট’। যা গত ৮ই জুন প্রথম চালু করা হয়েছে।

মার্কিন বিজ্ঞানীদের দাবি সুপার-কম্পিউটারটি ক্ষমতায় এবং গতিতে এর আগের সুপার-কম্পিউটারের প্রায় দ্বিগুণ। এটির ক্ষমতা হচ্ছে প্রায় ২০০ পেটাফ্লপ।

এতদিন পর্যন্ত বিশ্বের এক নম্বর সুপার-কম্পিউটার বলে বিবেচনা করা হতো চীনের ‘সানওয়ে তাইহুলাইট’কে। এটির প্রসেসিং ক্ষমতা ছিল প্রতি সেকেন্ডে ৯৩ পেটাফ্লপ।

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন তৈরি সামিট সুপার-কম্পিউটারটি শুরুতে মূলত ব্যবহার করা হবে অ্যাস্ট্রোফিজিক্স, ক্যানসার গবেষণা এবং সিস্টেম বায়োলজির কাজে।

সামিট সুপার-কম্পিউটারে ৪ হাজার ৬০৮টি কমপিউট সার্ভার আছে। এটির মেমোরি হচ্ছে দশ পেটাবাইট।

গত ৮ই জুন এটি প্রথম চালু করা হয়েছে।

ওকরিজ ন্যাশনাল ল্যাবরেটরির পরিচালক ড: থমাস জাচারিয়া জানিয়েছেন, এই সুপার কম্পিউটারটি আসলে ধাপে ধাপে যুক্ত করে যখন তৈরি করা হচ্ছিল, তখন থেকেই এটিকে কাজে লাগানো হচ্ছে।

২০১৭ সালে সর্বশেষ সুপার-কম্পিউটারের তালিকা প্রকাশের পর তাতে দেখা যায়, বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ৫০০টি সুপার কম্পিউটারের ১৪৩টি আছে যুক্তরাষ্ট্রে, আর ২০২টি আছে চীনে। এক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রর থেকে এগিয়ে আছে চীন।

তবে ‘সামিট’ তৈরি করার আগে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে শক্তিশালী সুপার-কম্পিউটার ছিল টাইটান। বিশ্ব র‍্যার্কিং-এ এটির অবস্থান ছিল পঞ্চম স্থানে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ