[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী বিশৃঙ্খলা চান না, ইসিকে জানাল আ. লীগ

প্রকাশঃ April 21, 2016 | সম্পাদনাঃ 21st April 2016

Hanif

ফাইল ছবি

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কোনো ধরনের অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা দেখতে চান না প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নির্বাচনে অনিয়ম ঠেকাতে প্রয়োজনে কঠোর হতে ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বার্তা’ নির্বাচন কমিশনকে পৌঁছে দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

বৃহস্পতিবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের সঙ্গে দেখা করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ প্রধানমন্ত্রীর এ বার্তা পৌঁছে দেন।

শেরেবাংলা নগরে ওইসি কার্যালয়ে ওই সাক্ষাতের পর হানিফ সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী কঠোর নির্দেশনা রয়েছে- নির্বাচনে কোনো ধরনের অনিয়ম, ত্রুটি, বিচ্যুতি উনি দেখতে চান না। সে নির্দেশনা নির্বাচন কমিশনকে পৌঁছে দিয়েছি।’

হানিফ বলেন, অনিয়ম হলেই জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে। পাশাপাশি দলীয় নেতাকর্মীদেরও এ বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হবে। আমরা মাঠ পর্যায়ের  নেতাকর্মীদেরও নির্দেশনা দিয়ে রাখব। কোথাও কোনো অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণার পর থেকে এ পর্যন্ত গোলযোগ-সহিংসতায় অন্তত ৩৫ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কঠোর সমালোচনাও করেছে বিভিন্ন মহল।

এই প্রেক্ষাপটে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে দ্বিতীয় দফা বৈঠকের পর সিইসিও বলেছিলেন, সহিংসতা রোধে ‘আরও কার্যকর’ পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

গত ২২ মার্চ ও ৩১ মার্চ দুই পর্বের ভোট শেষ হয়েছে। ২৩ এপ্রিল তৃতীয় ধাপের ভোটের দুই দিন আগে সিইসির সঙ্গে বৈঠক করে ক্ষমতাসীন দলের প্রতিনিধিরাও আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে তাগিদ দিয়ে গেলেন।

হানিফ অভিযোগ করেন, বিএনপি ইউপি নির্বাচনে ‘দলীয় প্রার্থী দিতে না পেরে; বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করছে। বিএনপি তাদের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ইউপি নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। তারা পরিকল্পিতভাবে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে। এ বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্যে ইসিকে পরামর্শ দিয়েছি।’

অনিয়ম, বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে ইসি ‘আইনানুগ ব্যবস্থা নিলে’ তাতে আওয়ামী লীগেরও সহযোগিতা থাকবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ