[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

নিজেকে নির্দোষ দাবি করলেন মমতা।

প্রকাশঃ July 28, 2016 | সম্পাদনাঃ 28th July 2016

বিনোদন ডেস্ক : বলিউডে নব্বইয়ের দশকের ‘বম্বশেল’ তকমা, হঠাৎ নিরুদ্দেশ, আন্তর্জাতিক মাদক পাচারের পান্ডা ভিকি গোস্বামীর স্ত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশ, মাদক পাচারে জড়িত থাকার অভিযোগসহ নানা কারণে বারবার সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছেন মমতা কুলকার্ণি৷  এতদিন সব মাথায় নিয়ে নাইরোবিতে স্বেচ্ছা নির্বাসনে ছিলেন৷  এবারে মুখ খুললেন তিনি। দাবি করলেন, সব অভিযোগ ভুয়া, তিনি নির্দোষ।

নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করে প্রাক্তন বলিউড অভিনেত্রী বলেন, পুলিশের কিছু অফিসার তাকে সামনে রেখে নিজেদের প্রচার করে যাচ্ছে৷ এই কারণেই তার নাম বারবার ড্রাগ ব়্যাকেটের সঙ্গে জড়ানোর চেষ্টা চলছে৷

এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মমতা নিজের ও ভিকির সম্পর্ক ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ফিরে যান অতীতের কথায়৷ বলেন, বলিউডে আসার কোনও রকম ইচ্ছা ছিল না তার৷ মায়ের বলিউডের স্বপ্ন পূরণ করতে গিয়েই এই পেশায় আসেন তিনি৷ নব্বইয়ের দশকে মায়ের মৃত্যুর পর আর শোবিজে থাকার কোনও কারণ তিনি খুঁজে পাননি৷ হতাশায় ভুগছিলেন নায়িকা৷ সেই সময় ভিকি তার জীবনে আসে৷ ভালবাসার টানে দেশ ছেড়েছিলেন৷ কিন্তু, আজ আর সেই সম্পর্ক নেই বলে দাবি মমতার৷ একই বাড়িতে নাকি তারা অপরিচিতর মতো থাকেন৷

মাদক চক্রের সঙ্গে তার নাম জড়ানো প্রসঙ্গে মমতার বক্তব্য, তার কাছে দুই হাজার কোটি টাকা থাকলে নাইরোবিতে ভাড়া নেওয়া অ্যাপার্টমেন্টে থাকতেন না৷ তার বোনকেও এভাবে মুম্বইয়ের মীরা রোডে সাধারণ ঘরে পড়ে থাকতে হত না৷ তার কাছে এখন সাকুল্যে ২৫ লক্ষ টাকা ডিপোজিট হিসেবে রয়েছে৷ তাতেই দিন গুজরান হয়৷

প্রাক্তন বলিউড অভিনেত্রীর কথায়, ১৯৯৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত তপস্যায় রত তিনি৷ এক যোগিনীর জীবন অতিবাহিত করছেন৷ আধ্যাত্মিক মুক্তিই তার জীবনের একমাত্র লক্ষ্য৷ এই জীবনে গোপনীয়তার কিছু নেই৷

স্বাধীনতা৭১ডটকম/এএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ