[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

নাটোরে রোগী মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতাল ভাঙচুর

প্রকাশঃ April 16, 2016 | সম্পাদনাঃ 16th April 2016

 

Nator-md20160416144722নাটোরের বড়াইগ্রামে ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতাল ভাঙচুর করা হয়েছে। শনিবার সকালে বনপাড়া হেলথ কেয়ার জেনারেল হাসাপাতালে এ ভাঙচুর চালায় শিশুর স্বজনরা।

এ ঘটনায় শিশুর স্বজনরা হাসপাতালের পরিচালকসহ কয়েকজনকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে এবং ভাঙচুর চালায়। পরে পুলিশ এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

নিহত শামীম হোসেন উপজেলার কুমরুল গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।

শিশুর বাবা নজরুল ইসলাম জানান, শ্বাসকষ্টের সমস্যার কারণে শুক্রবার দুপুরে শামীমকে হাসপাতালে নেয়া হয়। তখন ডা. কামরুন্নাহার শামীমকে দেখে প্রয়োজনীয় ওষুধসহ বাড়ি পাঠান। এরপর শনিবার সকালে পুনরায় নিয়ে আসতে বলেন। চিকিৎসকের কথামত সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক না থাকায় সেবিকা আসমা খাতুন শামীমকে শ্বাসকষ্টের জন্য নেবুলাইজার দিয়ে হিট দেন। এসময় প্রয়োজনের চেয়ে অতিরিক্ত মাত্রায় হিট দেয়ায় শামীমের মুখ পুড়ে যায় এবং সে তাৎক্ষণিকভাবে মারা যায়।

খবর পেয়ে ডা. আবু ইউসুফ হোসেন ঘটনাস্থলে শিশুকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। এসময় কৌশলে সেবিকা আসমা খাতুন হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে শামীমের স্বজনসহ স্থানীয়রা হাসপাতাল ঘেরাও করে। সেখানে পরিচালক রেজাউল করিম রেজাসহ ৪/৫ জন কর্মচারীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে হাসপাতালটিতে ভাঙচুর চালায়।

পরে বনপাড়া পৌর মেয়র জাকির হোসেন, বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ দয়াল কুমার, অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাকসহ অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত করে।

সূত্র জানায়, মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রশাসনকে ম্যানেজ করে অভিযোগপত্র সেবিকাকে পালাতে সাহায্য করেছে। তাছাড়া ময়নাতদন্তের নিয়ম থাকলেও পুলিশ সে নিয়ম ভঙ করে পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করেছে।

বড়াইগ্রাম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এখনো কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তবে অভিযোগের বিষয়ে ওসি জানান, এখানে কোনো অর্থের লেনদেন হয়নি। শিশুটির পরিবার অভিযোগ দায়ের করলে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হবে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ