[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]

টি-প্যাকের ব্যতিক্রমী ব্যবহার

প্রকাশঃ April 2, 2016 | সম্পাদনাঃ 2nd April 2016

photo-1431174480

ব্ল্যাক, গ্রিন, লং বা হার্বাল এমন অনেক স্বাদ ও ঘ্রাণের চায়ের জন্য আছে বিশেষায়িত টি-প্যাক। চায়ের পরিপূর্ণ স্বাদের জন্য একটি টি-প্যাক একবারই ব্যবহার করা উচিত। তবে ব্যবহৃত টি-প্যাক ফেলে না দিয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় অনেক কাজে লাগানো যায়। হেলদিগ্যাজেট অনুযায়ী ব্যবহৃত টি-প্যাকের কয়েকটি ব্যতিক্রমী ব্যবহার দেওয়া হলো।

রান্নায় সুগন্ধি 

ভাত, জই বা পাস্তায় ব্যতিক্রমী সুগন্ধি হতে পারে ব্যবহৃত টি-প্যাক। এসব রান্নার পাত্রটি পানি দিয়ে চুলোর ওপর রাখতে হবে। ওই পানির মধ্যে দিতে হবে ব্ল্যাক, গ্রিন, হার্বাল বা  নির্দিষ্ট কোনো ধরনের টি-প্যাক। গরম পানিতে কিছুক্ষণ রাখার পর টি-প্যাক তুলে ফেলতে হবে। ওই পানিতে রান্না শেষ করার পর খাবারের মধ্যে নির্দিষ্ট ধরনের সুবাস পাওয়া যাবে। সুবাস হালাকা হলেও স্বাদ ও গন্ধে নতুনত্বের জন্য যথেষ্ট।

বদ্ধ স্থানের দুগন্ধ দূর 

কোনো বদ্ধ স্থানের দুগন্ধ দূর করতে ব্যবহৃত টি-প্যাক বেশ কাজের। ফ্রিজের মধ্যেকার অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্গন্ধ দূর করতে এর মধ্যে নিচের দিকে শুকনো টি-প্যাক রেখে দিতে হবে। এ ছাড়া ময়লার ঝুঁড়ি বা অ্যাশট্রের নিচের দিকে টি-প্যাক রেখেও ঘরের দুর্গন্ধ দূর করা যায়।

হাতের দুর্গন্ধ দূর 

মাছ, আদা বা রসুন নিয়ে দীর্ঘক্ষণ কাজ করার পর হাত থেকে কড়া দুর্গন্ধ আসে। সাবান-পানি ব্যবহার করেও অনেক ক্ষেত্রে এটি দূর করা যায় না। এ ক্ষেত্রে টি-প্যাক একটি সমাধান হতে পারে। দুর্গন্ধযুক্ত হাতে ব্যবহৃত টি-প্যাক ডলে নিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এতে কড়া দুর্গন্ধ দূর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে হাতও নরম হবে।

চাপ কমাতে ও ত্বক ভালো রাখতে 

গোসলের পানিতে ব্যবহৃত টি-প্যাক যুক্ত করে মানসিক চাপ কমানো যায়। এ ছাড়া এর ফলে ত্বকের উজ্জ্বলতাও বজায় থাকে। বাথটাবে হালকা গরম পানিতে কয়েকটি ব্যবহৃত টি-প্যাক দিতে হবে। ওই পানিতে কিছুটা সময় নিয়ে শরীর ডুবিয়ে রাখতে হবে। এতে মানসিক চাপ কমবে। একই সঙ্গে ত্বকের কোষ ক্ষয়ের হাত থেকে রক্ষা পাবে। সুন্দর থাকবে ত্বক। বয়সও কিছুটা কম দেখাবে।

মুখের ব্যাকটেরিয়া দূর

বাজারের অ্যালকোহল-ভিত্তিক সাধারণ মাউথওয়াশ ব্যবহারে মুখের ব্যাকটেরিয়া দূর হলেও ভেতরের অংশ শুকিয়ে ফেলে। মুখের জীবাণু দূর করতে মাউথওয়াশের বিকল্প হতে পারে ব্যবহৃত টি-প্যাক। এক কাপ গরম পানিতে ব্যবহৃত টি-প্যাক নিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিতে হবে। পরে পানি ঠান্ডা করে নিলেই তৈরি হলো প্রাকৃতিক মাউথওয়াশ। আর সুগন্ধি টি-প্যাক ব্যবহারে এতে যুক্ত হয় নতুন মাত্রা।

চুলের কন্ডিশনার 

ব্যবহৃত টি-প্যাক হতে পারে চুলের কন্ডিশনার। গরম পানিতে ব্যবহৃত টি-প্যাক ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরে টি-প্যাক ফেলে দিয়ে পানি ঠান্ডা করতে হবে। স্বাভাবিকভাবেই শ্যাম্পু দিয়ে চুল পরিষ্কার করার পর টি-প্যাক ব্যবহৃত পানি কন্ডিশনার হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। পরে চুল থেকে পানি ভালোভাবে মুছে ফেলতে হবে। এতে নিষ্প্রাণ চুলেও কিছুটা ঝলমলে ভাব দেখা যায়।

পা দুর্গন্ধমুক্ত ও নরম করা 

একটি পাত্রে গরম পানি নিয়ে কয়েকটি টি-প্যাক দিতে হবে। পানি ঠান্ডা হলে সেখানে পা ডুবিয়ে রাখতে হবে। টি-প্যাকের ভেতরের গুঁড়ো দিয়ে পায়ের পাতা ভালোভাবে ডলে পরিষ্কর করতে হবে। এতে পা থেকে দুর্গন্ধ দূর হবে। একই সঙ্গে পা নরম হবে। পা পরিষ্কারে গ্রিন টির ব্যবহৃত টি-প্যাক ভালো কাজ করে।

চোখের নিচের দাগ ও ক্লান্তি দূর 

ব্যবহৃত টি-প্যাক ফ্রিজে কয়েক মিনিট রেখে ঠান্ডা করতে হবে। চোখের পাতা বন্ধ করে এর ওপর ঠান্ডা টি-প্যাক টানা ১৫ মিনিট রেখে দিতে হবে। এতে চোখের নিচের কালো দাগ দূর হবে। একই সঙ্গে দূর হবে চোখের ক্লান্তি।

ব্যথায় ফুলে ওঠা দূর 

দেয়াল বা মেঝেতে শরীরের কোনো অংশ আঘাত পেলে সেখানে ব্ল্যাক টির ব্যবহৃত টি-প্যাক ব্যবহারে ভালো ফল পাওয়া যায়। ফ্রিজে কিছুক্ষণ রাখা কয়েকটি টি-প্যাক ব্যথা পাওয়া অংশে কিছুক্ষণ চেপে ধরে রাখতে হবে। ব্ল্যাক টি রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে। তাই ব্যথায় ফুলে ওঠা হবে সবচেয়ে কম।

কাচ ও আয়না পরিষ্কার 
ব্যবহৃত টি-প্যাক দিয়ে কাচ ও আয়না ভালোভাবে পরিষ্কার করা যায়। ব্যবহৃত টি-প্যাক দিয়ে তেল বা ময়লা লাগানো কাচের জিনিসপত্র বা আয়না কিছুক্ষণ ঘষে ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে ফেলতে হবে। এতে কাচ ও আয়নায় লেগে থেকে তেল, ময়লা সহজেই দূর হয়। তবে এমন ব্যবহারের আগে অবশ্যই টি-প্যাকের গোড়ায় থাকা স্ট্যাপলারের পিন তুলে ফেলতে হবে।

কড়া চা তৈরিতে 

অনেকেই কড়া চা খেতে পছন্দ করেন। নতুন একটি টি-প্যাকের সঙ্গে একটি ব্যবহৃত টি-প্যাক যুক্ত করে কড়া চা তৈরি করা যায়। এ ক্ষেত্রে ভিন্ন গন্ধের টি-প্যাক ব্যবহারের মিশ্র সুবাসের চা পাওয়া যায়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ